পাইরেসি রোধে আরো কঠোর হলো গুগল

2
136

মেধাস্বত্ত্ব আইন অক্ষুন্ন রাখার পাশাপাশি কর্মী প্রেষণায় দুইটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগল। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী সপ্তাহ থেকেই পাইরেটকৃত মিউজিক, ভিডিও, গেম এবং কপিরাইট করা অন্যান্য কনটেন্ট গুগল সার্চ অপশন থেকে ঝেটিয়ে বিদায় করবে। আর নিজেদের কর্মীদের সন্তান ও পোষ্যদের ভবিষ্যত ভাবনা সম্পর্কে নিশ্চিন্ত রাখতে তাদের মধ্যে এক যুগ মেয়াদী মরণোত্তর বেতন-ভাতা প্রদান করা হবে।

গুগল ব্লগ’র এক পোস্টে  প্রতিষ্ঠানের অনুসন্ধান বিভাগের নির্বাহী অমিত সিঙ্ঘাল জানিয়েছেন, মেধাস্বত্ত্ব ভঙ্গ হয় এমন কোনো পোস্ট ওয়েবসাইটে থাকলে ওই সাইট’র বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে গুগল তাদের ওয়েব ‘অনুসন্ধান অ্যালগোরিদম’- এ প্রয়োজনীয় পরিবর্তন এনেছে। অ্যালগোরিদমটি’র মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইটের ব্যাপারে গুগল কতগুলো বৈধ কপিরাইট অপসারণ নোটিশ পায় তা গণ্য করা হবে। ‘যে সকল সাইটের বিরুদ্ধে এই ধরণের অপসারণ নোটিশ বেশি থাকবে তাদের লিঙ্কগুলো অনুসন্ধান ফলাফলে কম দেখানো হবে’ বলে তিনি জানান।

কপিরাইট আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে গত ৩০ দিনে গুগল ৪.৩ মিলিয়ন ইউআরএল সরিয়ে নেয়ার অনুরোধ পেয়েছে জানিয়ে সিঙ্ঘা বলেন, আগামী সপ্তাহ থেকেই নতুন পদ্ধতিটি কাজ শুরু করা হবে। তবে কেউ যদি মনে করে তাদের লিঙ্ক ভুল করে সরিয়ে নেয়া হয়েছে তারা আবেদনের করতে পাবেন। গুগল সেটি বিবেচনা করবে। ভুল হলে পুনরায় ফিরিয়ে আনা যাবে।

অপরদিকে কর্মরতদের মরণোত্তর বেতন-ভাতা প্রদানে নতুন একটি প্রকল্প হাতে নেয়ার কথা জানিয়েছেন গুগল মুখপাত্র। কর্মীদের পোষ্য বা নমিনিকে মৃত্যুর পরবর্তি ১২ বছর মেয়াদী অনুদান প্রদানের প্রকল্পটি শুরু করতে যাচ্ছে গুগল।

গুগল মুখপাত্রের বরাত দিয়ে ম্যাশবল জানিয়েছে, নতুন প্রকল্প’র আওতায় গুগল’র কোনো কর্মী মারা গেলে তার জীবনসঙ্গী ১২ বছর পর্যন্ত বেতন ভাতার অর্ধেক ও স্টক বেনেফিট পাবেন। একই সঙ্গে তার সন্তানরা ১৯ বছর পর্যন্ত প্রতি মাসে এক হাজার ডলার করে খরচ পাবেন।

প্রসঙ্গত, গুগল-এ এ মুহূর্তে ৩৪ হাজার কর্মী রয়েছেন। ইতিমধ্যেই এরা বিনামূল্যে খাবার এবং ফিটনেস ক্লাস থেকে শুরু করে লন্ড্রি এবং কার পরিষ্কার সুবিধা ভোগ করছেন।

comments

2 COMMENTS

  1. গুগল এর সিদ্ধান্ত ঠিক আছে, এটা অনেক আগেই নেওয়া উচিত ছিলো। যাই হোক, শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here