আপনার ব্লগকে সার্চ রেজাল্টে প্রথম পেইজে নিয়ে আসার উপায়সমূহ

24
782

প্রত্যেক ব্লগারের স্বপ্ন থাকে তার ব্লগকে সার্চ রেজাল্টের প্রথম পেইজে নিয়ে আসা ।

তবে এটি খুব একটা সহজ হয়ে উঠেনা যদি না আপনি রুল অনুযায়ী কাজ করেন ।

আপনার ব্লগকে প্রথম পেইজে নিয়ে আসতে হলে রুল অনুযায়ী কঠোর পরিশ্রম করার মাধমেই আপনি করতে পারবেন।

নিম্নে আমি গুগলের সম্প্রতি পান্ডা এবং পেঙ্গুইন আপডেডের রুল অনুযায়ী কিভাবে আপনার সাইটকে সার্চ রেজাল্টে এগিয়ে আনবেন এটি নিয়ে আলাপ করছি ।

তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে আসুন শুরু করি ।

 

images

 

  • হাই কোয়ালিটি ইউনিক কন্টেন্ট :

 

content-is-king

 

এক কথায় বলতেই হয় কন্টেন্ট ইজ কিং অলঅয়েস 🙂

একটা সময় ছিল যখন আপনি শুধু মাত্র ব্যাকলিঙ্ক করে আপনার সাইটকে র‍্যাঙ্ক করাতে পারতেন যদি আপনার কন্টেন্ট কপি পেস্টও হত ।

কিন্তূ এখন কি তা সম্ভব ?

না , সম্ভব না , তাইনা ?

কারন গুগলের পান্ডা এবং পেঙ্গুইন আপডেডের ফলে সব কিছুই পরিবর্তন হয়ে গেছে ।

আগে যারা যেই সাইট থেকে প্রতি মাসে ২০,০০০-৩০,০০০ টাকাও কামাতো তারা এখন কোন টাকাই তাদের সাইট থেকে ইঙ্কাম করতে পারছেনা তাই কন্টেন্ট এর গুরুত্ত এটি দ্বারা বুঝা যায় ।

তাই বর্তমানে আপনার সাইটকে র‍্যাঙ্ক করতে হলে হাই কোয়ালিটি ইউনিক কন্টেন্টের ভ্যালু অপরিসীম ।

পোস্টিং করার অনেক নিয়মই আছে তবে আমার মতে ১০০% ইউনিক ৪০০-৬০০ ক্যারেক্টারের পোস্ট করলেই যথেষ্ট ।

অনেক ব্লগার তার সাইটকে ওভার অপ্টিমাইজ করে ধরা খায় , তারা মনে করে ওভার কী-ওয়ার্ড ডেনসিটি অথবা অন্য টেকনিক্স ফোলে করে র‍্যাঙ্কে এগিয়ে যেতে পারবে আসলে তা ভুল এতে নিজের সাইটের লাভের চেয়েও ক্ষতি বেশি হবে ।

একটা কথা যাই করেন  ন্যাচারেলি করবেন !

তাই পুরনো দিন ভুলে নতুন দিনে এগিয়ে যান ।

 

  • গেস্ট ব্লগিং :

 

Guest-blogging

 

অনেকেই গেস্ট ব্লগিং করেন না তবে বর্তমানে গেস্ট ব্লগিংয়ের ভূমিকা অপরিসীম ।

তবে সব ব্লগেই গেস্ট ব্লগিং করে কোন লাভ নেই আপনি অবশ্যই বেশ কিছু অথোরিটি সাইটে ব্লগিং করবেন।

এই অথোরেটি সাইটগুলো আপনার ব্লগকে সার্চ রেজাল্টে এগিয়ে আনার জন্য অনেক বেশি হেল্প করবে।

কারন আপনি যখন অথোরেটি সাইটে ব্লগিং করবেন তারা আপনাকে দুইভাবে সাহায্য করবে।

একটি হল অথোরেটি সাইটে পোস্ট করার মাধ্যমে আপনি গুড কোয়ালিটি অথোরেটি ব্যাক লিঙ্ক পাচ্ছেন যা আপনার সাইটের জন্য অতীব গুরুত্বপূর্ণ তাছাড়াও আপনি ব্লগিং কমিনিটির সাথে ভালো করে পরিচিত হতে পারছেন ।

তাছারা গেস্ট ব্লগিং করার জন্য ব্যাকলিংকের পাশাপাশি আপনি প্রচুর পরিমাণ টার্গেটেড ভিজিটর পাচ্ছেন।

তাহলে গেস্ট ব্লগিংয়ের গুরুত্ত কি সবাই বুঝতে পারছেন নিশ্চয় ?

তাহলে যারা এতদিন গেস্ট ব্লগিং করতেন না তারা আজকে থেকেই গেস্ট ব্লগিং শুরু করে ফেলুন 🙂

 

  • লং ট্রাইল কী-ওয়ার্ডের উপর গুরুত্ব দিন !

 

learn-seo-basics-long-tail1 (1)

মনে করেন আপনি একটি পোস্ট লিখছেন এবং এটির কী-ওয়ার্ড দিলেন “Importance of Blogging” এবং আপনার টার্গেট হল এই কী-ওয়ার্ড এর কম্পিটেটরদের আপনার বিড করা তাহলে আপনার এই ধরনের কী-ওয়ার্ড নিয়ে কম্পিটেটরদের বিড করা অনেক কঠিন হবে । আবার আপনি যদি “importance of blogging in 2013” এই ধরনের লং ট্রাইল কী-ওয়ার্ড ইউস করেন তাহলে আপনি অনেক সহজেই আপনার কপিটিটরদের বিদ করতে পারবেন। তাহলে বুঝতেই পারছেন লং ট্রাইল কী-ওয়ার্ডের গুরুত্ত কেমন ?

সামনে কী-ওয়ার্ড রিসার্চ নিয়ে বিস্তারিত আকারে একটি টিউন করবো সেই পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকুন ।

 

  • ব্যাক লিঙ্ক :

 

prbacklinks

 

আগে সবাই এতো পরিমাণ ব্যাক লিঙ্ক ক্রিয়েট করতাম সাইটের জন্য যা আমরা নিজেই স্বীকার করতাম যে এটা স্পামের পর্যায়ে ।

তবে এখন স্পাম করলে আপনার খবর আছে যাই করবেন ন্যাচারেলি করবেন ভুলেও স্পাম আকারে ব্যাক লিঙ্ক করতে যাবেন না ।

ব্যাক লিঙ্ক করার জন্য আপনি যা যা করতে পারেন আমি Social Bookmark, Forum Posting, Guest Blogging, Link While, Relevant Blog Comment, RSS Submission, Directory Submission ইত্যাদি তবে স্পামের মত অতিরিক্ত করবেন নাহ ।

আর অনেকেই আছে সফটওয়্যার ব্যবহার করে ব্যাক লিঙ্ক করে এটাতো অবশ্যই এড়িয়ে চলবেন সাথে অনেক সাইট আছে যারা ফ্রী ব্যাক লিঙ্ক দেয় ঔ সব সাইটকেও এড়িয়ে চলবেন। তাছাড়াও অনেকেই পেইড ব্যাক লিঙ্ক ক্রিয়েট করে কিন্তূ আপনি কি জানেন এই পেইড ব্যাক লিঙ্ক গুলো কিভাবে করে ?

যদি না জেনে থাকনে তাহলে নিজ দায়িত্তে জেনে নিবেন । আপনার ব্যাক্তিগত সাজেশান হল আপনার যদি ব্যাক লিঙ্ক ক্রিয়েট করতে এতো আলসে লাগে আমাদের দেশে অনেকই আছে যারা আপনাকে অল্প টাকায় ন্যাচারেল ব্যাক লিঙ্ক ক্রিয়েট করে দিবে তাতে আপনারও লাভ হবে সাথে তাঁদেরও ।

 

আর একটি কাজ যেটি ব্যাক্তিগত ভাবে আমি করি এবং এটা যে কত কাজের তা আমিই জানি তাই আপনি ট্রাই করে দেখতে পারেন জানিনা আর কে করে 🙂

আপনার ব্লগে নতুন পোস্ট পাবলিশড করার পর পরই চেষ্টা করবেন সেই পোস্টের পারমালিংকের উপর অন্তত ৪-৫ টি হাই কোয়ালিটি অথোরিটি ব্যাক লিঙ্ক তৈরি করা সেটা যেভাবেই হোক ।

হতে পারে গেস্ট ব্লগিং করে অথবা অন্য যে কোন উপায়ে ।

যদি আপনি এমন ভাবে ব্যাক লিঙ্ক করতে পারেন সার্চ ইঞ্জিনে আপনার পোস্ট যে অতি শিগ্রই এগিয়ে আসবে সেই ব্যাপারে গ্যারান্টি আমি দিচ্ছি 🙂

 

আমার বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে প্রাক্তিকাল এই টিপস গুলোই আমি আপনাদের শেয়ার করলাম ।

যদি কোন ভুল হয় ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখেবন।

আর আপনার কোন সাজেশান থাকলে অবশ্যই বলবেন যে আপনার সাইটকে র‍্যাঙ্ক করানোর জন্য আপনি কোন টিপস ফলো করেন পড়ে আমি আপনারটা অ্যাড করে পোস্ট ইডিট করে দেব।

অনেক কষ্ট হল পোস্টটি লিখতে যদি আপনারা এতে সামান্যতম উপকৃত হন তাহলে আমার কষ্ট সার্থক ।

ভালো লাগলে কমেন্টের মাধ্যমে উৎসাহ দিতে ভুলবেন নাহ 🙂

 

তাছারা আমার লাইভ সাপোর্ট পেতে অথবা এস.ই.ও, ওয়েব ডিজাইন, গ্রাপিক্স ডিজাইন, ই-মেইল মার্কেটিং, ব্লগিং এন্ড অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সহ যে কোন জিজ্ঞাসার জন্য আমাদের পেইজে লাইক দিয়ে রাখতে পারেন মাইসিস ইন্সটিটিউট অফ আইটি

comments

24 COMMENTS

  1. ধন্যবাদ আপনাকে এত সুন্দর একটি পোষ্টে লিখার জন্য। আপনার পোষ্টটি হতে কিছু শিখতে পারলাম। অবশ্য আগে থেকেই কিছু জানতাম। এটা ঠিক গেস্ট ব্লগিং করে টার্গেটেড ভাল পরিমান ভিজিটর পাওয়া যায়। আমি নিজেই এই টেকটিকটি ইউজ করে ভাল ফল পেয়েছিলাম।

  2. ধন্যবাদ ভাই । লংটেইল কিওয়ার্ড দিয়ে তো সার্চ অনেক কম হয় আর সার্চ কম হলে তো ইনকাম ও কম হবে ।

    • লং টেইল কি- ওয়ার্ড এ সার্চ কম হয় এইটা একদম ঠিক। যদি আপনি কি-ওয়ার্ড রিসার্চ করেন দেখলেন মেইন কি- ওয়ার্ড যেমনঃ Entertainment News এই কি- ওয়ার্ড টি তে ভিজিটর আছে ৩ লক্ষের উপর এখন আপনি এইটা কে বেছে নিলেন আপনার সাইট এর কি- ওয়ার্ড হিসেবে। আপনি কি মনে করেন সবাই আপনার মত ওই কি- ওয়ার্ড টা বেছে নেই না। যারা ওই কি- ওয়ার্ড এ টপ পজিশনে আছেন তাদের কে আপনি একটু রিসার্চ করুন দেখুন তাদের সাইটের মান কত। অর্থাৎ আপনাকে তাদের কাছে আসতে হলে যত বেশি কাজ করতে হয় তার থেকে বেশি অপেক্ষা করতে হয়। কিন্তু লং টেইল কি- ওয়ার্ড গুলোতে ভিজিটর কম যায়। দেখা যায় সার্চ এসে ৩০০০+ এর মত । আপনি যদি ওই কষ্ট টুকু এই কি- ওয়ার্ড এর জন্য করেন তাহলে খুব দ্রুত টপে চলে আসেন। আমি ধরলাম আপনার ৩০০০ হাজার ভিজিটর থেকে ২০০০ হাজার ভিজিটর আপনার সাইট এ প্রবেশ করল। আপনি এই রকম ৫ টা কি ওয়ার্ড কে আপনার সাইট এর টপ পজিশনে নিয়ে আসলেন। আপনার ভিজিটর দাঁড়ালো ১০০০০+ আপনি আপনি ওই ছোট কি- ওয়ার্ড যদি এই পরিমান কাজ করতে তাহলে ভিজিটর পাইতেন ১০০০+ কারন আপনি এত দ্রুত তাদের পজিশনে যেতে পারবেন না। আর এছাড়া আরও অনেক বেশি আলোচনা আছে এই বিষয়ের উপর। আমি আপনাকে ছোট একটা উদাহরণ দিয়ে বোঝানর চেষ্টা করলাম।

      • হুম, বিষয়টা এইরকমই। আসলে, লংটেইল কিওয়ার্ড খুজে নিতে হয় একটু কষ্ট স্বীকার করে। তবে ফলাফল হেড কিওয়ার্ড এর চেয়ে অনেক ভালো। উদাহরণ দিয়ে চমৎকারভাবে বুজিয়ে দিয়েছেন। ভালো লাগলো!

  3. অনেক সুন্দর একটি পোস্ট! 😀 আপনাকে থ্যাংকস এমন একটি পোস্ট আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

  4. অনেক উপকারি এবং তথ্যসমৃদ্ধ একটি লেখা। ধন্যবাদ সাব্বির ভাই।

  5. অনেক সুন্দর একটি পোস্ট! 😀 আপনাকে থ্যাংকস এমন একটি পোস্ট আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

  6. Search Engine Optimization এর একটি খুব জরুরী অংশ হল Blogging, এর এত দারুণ বিবরণ আমি বাংলায় কথাও পড়িনি। ধন্যবাদ আপনাকে এই বিস্তারিত post টির জন্য। আপনার কাছ থেকে আরও কিছু দারুণ post এই ব্যাপারে আশা করছি। – ফারিহা

  7. ধন্যবাদ এতো গুরুত্বপূর্ন একটি পোষ্ট শেয়ার করার জন্য । আমি আশা করি এটা সবার উপকারে আসবে । পোষ্টটি আমার খুব ভাল লেগেছে ।

  8. এটা আমার কাজে লাগবে। অনেক ধন্যবাদ এই পোষ্টটির জন্য।

  9. অসাধারন বুদ্ধিমত্তা দিয়ে আরটিক্যাল্টি লিখেছেন। সংশ্লিষ্ট সকলের কাজে লাগবে নিশ্চিত! শুভ কামনা রইল।.

  10. পোষ্টটি আমার খুব ভাল লেগেছে । এটা আমার কাজে লাগবে। অনেক ধন্যবাদ এই পোষ্টটির শেয়ার করার জন্য সাব্বির ভাই।

  11. ভাই Sabbir Alam আপনার টিপসটি পরে উপকৃত হলাম,আশা করি আপনার কাছ থেকে এমন আরো টিপস পাবো।। ধন্যবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here