৩০০ মেগাবাইট পর্যন্ত ইমেইল অ্যাটাচমেন্ট!!! নিতে পারেন মাইক্রোসফটের নতুন সেবা ‌’আউটলুক’

লেখক : , প্রকাশকাল : 02 August, 2012

বিভিন্ন ইমেইল সেবা যেমন জিমেইল, ইয়াহু, হটমেইলে সর্বোচ্চ ২৫ মেগাবাইটের অ্যাটাচমেন্ট সেবা পাওয়া যায়। তবে মূলত যারা অনলাইনে ফ্রিল্যান্সি কাজ করেন (যেমন গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন ইত্যাদি), বড় ফাইল আদান প্রদান করেন তাদের জন্য এটি যথেষ্ঠ নয়। বাধ্য হয়ে অনেককেই ফাইল শেয়ারিং সাইট, সফটওয়্যারের সাহায্য নিতে হয়। এই সমস্যার সমাধানে এগিয়ে এসেছে প্রযুক্তি জায়ান্ট মাইক্রোসফট। ৩০০ মেগাবাইট অ্যাটাচমেন্ট সুবিধাসহ  ইমেইল সেবায় প্রয়োজনীয় বিষয়গুলোকে ব্যবহারকারীদের কাছে পৌছে দিতে নতুন ইমেইল সেবা চালু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। মাইক্রোসফটের সর্বশেষ অপারেটিং সিস্টেম উইন্ডোজ ৮ এর মতোই এখানে এসেছে অসাধারণ সব সেবা। প্রতিষ্ঠানটির অপর ইমেইল সেবা হটমেইলের থেকে আমূল পরিবর্তণ এসেছে এই সেবায়। তবে আপাতভাবে হটমেইলের সেবা বন্ধ হচ্ছে না বলে জানিয়েছে মাইক্রোসফট। আউটলুক.কম নামে পরিচিত মেইল সেবাটি এই মুহূর্তে হটমেইলের পাশাপাশি অবস্থান করবে বলে জানা গিয়েছে।

অন্যান্য ইমেইল ক্লায়েন্ট এর সাথে প্রতিযোগিতা নয় বরং নতুন নামে নতুনভাবে আকর্ষনীয় সব সুবিধা দেওয়ার জন্যই বুধবার থেকে আউটলুক নামে ইমেইল সেবা চালু করা হয়েছে।

বিভিন্ন ব্লগপোস্টে হটমেইলকে ঢেলে না সাজানোর কারণটি উল্লেখ করা হয়েছে। এক্ষেত্রে দুটি বিষয়টি বিবেচনা করা হয়েছে। প্রথমত প্রযুক্তিগত কারণে। পুরাতন সংস্করণটির উন্নয়ন অপেক্ষা নতুন করে শূন্য থেকে শুরু করাটাই অনেক সহজ বলে মনে হয়েছে প্রকৌশলীদের কাছে। আর দ্বিতীয়টি হচ্ছে, হটমেইল সম্পর্কে অনেকেরই খারাপ মন্তব্য ও ধ্যান ধারণা রয়েছে। আর এ কারণে আউটলুককে নতুনভাবে সাজানো হয়েছে। যেখানে ফিচারগুলো জীবন্ত মনে হবে। এছাড়া নতুন সেবায় বিজ্ঞাপনগুলো আরো স্তিমিত আকারে, ভিডিও বিজ্ঞাপন হীন, এবং ব্যবহারকারী নির্ভর বিজ্ঞাপন ছাড়া করা হয়েছে।

হটমেইলের মতোই নতুন এই সেবায় ব্যবহারকারীরা ভার্চুয়াল স্পেস স্কাইড্রাইভ ব্যবহার করতে পারবেন। যেখানে ৭ গিগাবাইট স্পেস ব্যবহার করা যাবে।

বেশ কয়েকটি কারণে নতুন এই ইমেইল সেবাটি আকর্ষনীয় মনে হয়েছে। আমি নিজেই বেশ উপভোগ্য মনে করেছি আউটলুককে।  নিম্নে এমনই কিছু বিষয় তুলে ধরলাম।

পরিষ্কার ডিজাইন:
নতুন ইমেইল সেবাটির ইন্টারফেসটি অত্যন্ত পরিষ্কার। মাইক্রোসফটকে ‘জিমেইল’ এর সাথে তুলনার ব্যাপারটা উল্লেখ করা হলে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে তাদের হেডার ৬০ ভাগ কম পিক্সেল ধারণ করে, ফলে এক পৃষ্ঠায় আরো বেশি ইমেইল দেখানো সম্ভব। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে সম্প্রতি এক সমীক্ষার মাধ্যমে মাইক্রোসফট জানতে পেরেছে ৮০% জিমেইল ব্যবহারকারী অন্য কোন মেইল ব্যবস্থা ব্যবহার করতে আগ্রহী।

আউটলুক.কম এর নূন্যতম চেহারার পেছনে যে অনুপ্রেরণাটাই থাকুক না কেন, এর বাহ্যিক অবয়ব আসলেই অনেক সুন্দর। ডিসপ্লে ব্যানার, এবং ভিডিওসহ চকচকে বিজ্ঞাপন আর নেই। তার বদলে হোম স্ক্রিনের বেশির ভাগ অংশ জুড়ে রয়েছে মেইল উইন্ডো। ডিলিট, ফ্ল্যাগ এবং মার্ক অ্যাজ রিড এর মত প্রয়োজনীয় বাটনগুলো এখন লুকানো অবস্থায় থাকে এবং মেইলের উপর মাউস নিয়ে এলে সেগুলো ভেসে উঠে।

হোম স্ক্রিনের বাম পার্শ্বে রয়েছে চিরপরিচিত ন্যারোপ্যান, যেখানে ফোল্ডারগুলো একটার উপরে একটা করে সাজানো রয়েছে। তার নিচেই রয়েছে ‘কুইক ভিউস’ বৈশিষ্ট্য। এটি আপনার মেইলগুলো নির্দিষ্ট কিছু ভাগে (পরিবর্তনযোগ্য) ভাগ করা যায়, যেমন ধরুন, ছবিসহ ইমেইল। একদম উপরে রয়েছে অনুসন্ধান সুবিধা।

স্ক্রিনের ডান পার্শ্বে পাবেন বিজ্ঞাপন। আর একদম উপরে রয়েছে হাই-লেভেল মেন্যু। স্থানটি অত্যন্ত পরিষ্কার। এখানে আউটলুক লেখার উপর মাউস নিয়ে গেলে একটি অ্যারো চলে আসবে আর তার উপর ক্লিক করার মাধ্যমে আপনি ব্যবহার করতে পারবেন, ক্যালেন্ডার, স্কাইড্রাইভ অথবা পিপল হাবের মত সুবিধাগুলো।

আউটলুক মেইলের সাথে জিমেইলের পার্থক্যটা এখানেই। জিমেইল তার বৈশিষ্ট্যগুলো উপরে সারিবদ্ধভাবে দেখিয়ে থাকে।

এছাড়া হাই-লেভেল মেন্যুটিতে আপনার কাজ অনুসরণ করে পরিবর্তিত হয়ে থাকে। ধরুন আপনি একটা মেইল মুছে ফেলতে আগ্রহী, এর সাথে সাথে আপনাকে একবারে পুরো মেইল বক্স মুছে ফেলবেন কিনা তার অপশন দেখাবে। মেসেজ খুললে পাবেন রিপ্লাই, ডিলিট, মুভ টু ইত্যাদি সুবিধাগুলো। যে পৃষ্ঠাতেই থাকুন না কেন নতুন মেইল খোলার বিশাল বাটনটি আপনার সাথে থাকবে।

জিমেইলের ক্ষেত্রে আমরা দেখব, ইমেইল অপশন, সার্চ ফিল্ড এবং টপ-লেভেল ট্যাব (ডকুমেন্ট, ইউটিউব) গুলোর জন্য রয়েছে নিজস্ব রো। এছাড়া জিমেইলের ক্ষেত্রে মেইলের তালিকাটি শুরু হয় স্ক্রিনের অনেক নিচ থেকে ফলে এক পৃষ্ঠায় কম মেইল দেখা যায়।

নিয়ন্ত্রিত বিজ্ঞাপন:
নতুন আউটলুক মেইলে বিজ্ঞাপন ব্যবস্থায় পরিবর্তন এনেছে মাইক্রোসফট। যে ধরণের বিজ্ঞাপনই হোক না কেন সবগুলো একটি ফরম্যাট অনুসরণ করতে হবে (অনেকটা অ্যাপলের আইঅ্যাডের মত)।
এছাড়া জিমেইলের মত ব্যবহারকারী নির্দিষ্ট বিজ্ঞাপন ব্যবস্থাও থাকছে না এতে।

সামাজিক যোগাযোগব্যবস্থা অন্তর্ভুক্তি:
হাই-লেভেল মেন্যুর ডানদিকে রয়েছে মেসেঞ্জার বাটন। এটির উপর ক্লিক করলে পেজের ডানদিকে ওপেন হবে চ্যাট মেন্যু। এই ইউজার ইন্টারফেসের সাথে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে ফেসবুক এবং টুইটারকে। এর মাধ্যমেই আপনি পেয়ে যাবেন সর্বশেষ স্ট্যাটাস আপডেট (আপনার ফেসবুক এবং টুইটার অ্যাকাউন্টটি অবশ্য তার আগে এর সাথে যুক্ত করে নিতে হবে)। টুইটার ব্যবহারকারীরা এর মাধ্যমে টুইটও করতে পারবেন। ফেসবুক এর ক্ষেত্রে অন্যের পোস্টগুলোতে ‘লাইক’ অথবা মন্তব্য করতে পারবেন।

Outlook 4

একান্ত করে নেবার অপশন:
আপনি যদি এখনো ছোট্ট বাচ্চা হয়ে থাকেন তাহলে জিমেইল আপনার জন্য আদর্শ। অবশ্যই আউটলুক.কমকে আপনি একান্ত করতে পারবেন কিন্তু পাবেন না রঙচঙে কোন ব্যাকগ্রাউন্ড; ১২ টি রঙ নিয়ে আপনাকে খুশী থাকতে হবে। স্ক্রিনের উপরে থাকা সেটিংস বার থেকে তা নির্ধারণ করতে পারবেন। এই একই অপশন থেকে আপনি আপনার রিডিং প্যানটি কোথায় নিয়ে যাবে তাও নির্ধারণ করতে পারবেন। “মোর মেইল সেটিংস” অথবা পেজের নিচে থাকা ইংলিশ (ইউনাইটেড স্টেটস) চাপ দেবার মাধ্যমে পরিবর্তন করতে পারবেন ভাষা, রয়েছে ১০৬ টি এবং বাংলা তার মধ্যে একটি।

পারফরমেন্স এবং স্প্যাম কন্ট্রোল:
বেটা হলেও বেশ দক্ষ এবং গতিশীল আউটলুক.কম। দুয়েকটি ছোটখাটো সমস্যা দেখা দিয়েছে কিন্তু সেগুলো উল্লেখযোগ্য করা মত নয়, যেমন ধরুন কারো ইমেইলের জবাব দিয়েছেন, সেই জবাবটি অপঠিত ইমেইল হিসেবে উজ্জ্বল করে দেখাবে।
এনগ্যাজেট জানিয়েছে দুই সপ্তাহ ব্যবহার কোন ধরণের স্প্যাম তারা তাদের ইমেইল বক্সে পায়নি। এছাড়া ডিফল্ট ভাবে অন করা রয়েছে এসএসএল।

কিভাবে পাবেন:
আউটলুক.কম এ গিয়ে নতুন একটি ইমেইল অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন অথবা পুরনো অ্যাকাউন্টটি আপগ্রেড করতে পারেন। পুরনো অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারীরা পছন্দ না হলে আবার পুরাতন সেবায় ফিরে আসতে পারবেন। উপরের দিকের সেটিং বাটনে ক্লিক করলে নিচ থেকে হটমেইলে সুইচ করার অপশন পাবেন।

অ্যাটাচমেন্ট:
সর্বোচ্চ ৩০০ মেগাবাইট আকৃতির ফাইল অ্যাটাচমেন্ট হিসেবে পাঠাতে পারবেন। জিমেইলে এই সীমা ২৫ মেগাবাইট। তবে এই লিমিটটি স্কাই ড্রাইভ থেকে কোন কিছু পাঠানোর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। অন্য কোন স্থান থেকে পাঠাতে চাইলে তা ১০০ মেগাবাইটে নেমে আসবে।

স্কাইপ অন্তর্ভুক্তি:
স্কাইপ এখন মাইক্রোসফটের, আর তাই এই প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি সফটওয়্যারের সাথে একীভুতভাবে যে এই সুবিধাটি পাওয়া যাবে তাতো জানা কথাই। আউটলুক.কমের সাথে স্কাইপ পাবেন বিল্ট-ইন হিসেবে। তবে সেবাটি এখনো চালু হয়নি। মাইক্রোসফট খুব শীঘ্রই এটি অন্তর্ভুক্ত করতে পারবে বলে মনে করছে।

উপসংহার:
নতুন মেইল পরিসেবাটি অত্যন্ত আকর্ষণীয়, চটপটে, বৈশিষ্ট্য সম্বলিত এবং জিমেইল অপেক্ষা শান্ত। বিশেষণগুলো হালকা বলে মনে হলেও একটা জিনিস আপনাদেরকে মনে রাখতে হবে গুগল মাত্র কয়েকদিন আগেই তার মেইল সেবাটির ইউআই এ উন্নয়ন সাধনের জন্য প্রচুর কাজ করেছে। আগেই বলেছি এনগ্যাজেট তার পাঠকদেরকে এই নতুন সেবাটি একবার ব্যবহার করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে, কিন্তু উপসংহারে পৌঁছে ডানা উলম্যান জিমেইল ছেড়ে আউটলুক ব্যবহার করবেন বলে উল্লেখ করেন। ম্যাশেবলের পিটার তার বিশ্লেষণে আউটলুককে অনেক ব্যাপারে জিমেইলের চেয়েও উন্নত বলে অভিহিত করেছেন। আর সিনেট মনে করছে মাইক্রোসফট এর মাধ্যমে তার ব্যবহারকারীদেরকে দিয়েছে নতুন কিছু উপহার।

তথ্যসূত্র: প্রিয়টেক, ম্যাশেবল ও এনগ্যাজেট

comments

মন্তব্য প্রদান করুন

*