জনপ্রিয় ১০টি ফ্রি কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিষ্টেম(CMS)

লেখক : , প্রকাশকাল : 27 November, 2013

একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরী করার জন্যে কিছুদিন আগেও শুধুমাত্র html/css ব্যবহার করা হত যা কিনা বেশ সময়সাপেক্ষ এবং কষ্টকর প্রক্রিয়া। বর্তমানে অসংখ্য কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিষ্টেম রয়েছে যা ব্যবহারে ওয়েবসাইট ডেভেলপার এবং পাবলিশারদের কাজকে অনেক অনেক স্বাচ্ছন্দ্যময় করে তুলেছে। চলুন  চাহিদা এবং ব্যবহারের ভিত্তিতে এদের মাঝে জনপ্রিয় কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যারগুলো দেখে নিই:

১. ওয়ার্ডপ্রেস

ওয়ার্ডপ্রেস (ইংরেজি: WordPress)  ওয়েব ষ্ট্যান্ডার্ড, ইউজেবিলিটি এবং সৌন্দর্যের কথা বিবেচনা করলে ফ্রি কনটেন্ট ম্যানেজমেন্টের প্রথম অবস্থানটি ধরে রেখেছে ওয়ার্ডপ্রেস।  ওয়ার্ডপ্রেস হচ্ছে বর্তমানে সর্বাধিক জনপ্রিয় ব্লগ পাবলিশিং অ্যাপলিকেশন(CMS), যা পিএইচপি এবং মাইএসকিউএল দ্বারা তৈরিকৃত ওপেন সোর্স ব্লগিং সফটওয়্যার। ওয়ার্ডপ্রেস প্রথম পর্যায়ে একটি ফ্রি ব্লগিং প্লাটফর্ম ছিল যা পরবর্তীকালে একটি ইঞ্জিন তৈরি করে এবং বিনামূল্যে তা ডাউনলোড করে যেকোনো ব্লগারকে ব্যবহারের সুবিধা দিতে শুরু করে। এটি দ্বারা পিএইচপি,  মাইএসকিউএল বা এইচটিএমএল জ্ঞান ছাড়াই একটি প্রোফেশনাল মানের ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্ভব। ম্যাট মুলেনওয়েগ ২০০৩ সালের ২৭শে মে এটি প্রাথমিকভাবে প্রকাশ করেন। জানুয়ারি ২০১২ পর্যন্ত ওয়ার্ডপ্রেস ৩.৪ সংস্করণ ৩ কোটিরও বেশিবার ডাউনলোড হয়েছিল (!!)।

ওয়েব: wordpress.org

২. জুমলা

জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে ওয়ার্ডপ্রেস এর পরই যে সিএমএস এর নাম উঠে আসে সেটি হল জুমলা। জুমলা হল একটি সম্পূর্ন ওপেন সোর্স সফটওয়্যার, এটা পিএইচপি এবং মাইএসকিউএল দিয়ে তৈরি এওয়ার্ড উইনার সিএমএস যার মাধ্যমে পাওয়ারফুল ওয়েব এপ্লিকেশন অনায়াসে তৈরী করা যায়। ২০০৫ সালে মেমবো এর কিছু ফিচার নিয়ে জুমলা তৈরি করা হয় এবং Miro International Pvt Ltd.  এর নামে একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান একে ট্রেড মার্ক করে। জমুলা রিলিজ হয়ার প্রথম বছরে এটি ডাউনলোড করা হয় প্রায় ২.৫ মিলিয়ন (২৫লাখ) বার । এরপর ২০০৭ এর মার্চ থেকে ২০১১ ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত এটি ডাউনলোড হয়েছে প্রায় ২১ মিলিয়ন (২কোটি ১০লাখ ) বার।

ওয়েব: http://www.joomla.org/

৩. দ্রুপাল:

বর্তমান ওয়েব ডেভেলপমেন্টের যুগে দ্রুপাল  বা ড্রুপাল একটি অতি পরিচিত এবং জনপ্রিয় নাম। পিএইচপি কোডিংয়ের সমন্বয়ে তৈরি এই সিস্টেমটি ‘দ্রুপাল কোর’ নামেও পরিচিত। ২০০৬ থেকে ২০০৯ এ ওপেনসোর্স সিএমএস অ্যাওয়ার্ড-এ ১ম এবং ২০১০ এ ২য় অবস্থান অর্জন করে। ওয়েবসাইট তৈরির ক্ষেত্রে ওয়ার্ডপ্রেস, জুমলার মতো কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্টগুলোর সাথে পাল্লা দিয়ে দ্রুপাল  খুবই দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে, বাংলার ওয়েবসাইট ডেভেলপাররাও এক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই।

ওয়েব: http://drupal.org/

৪. সিলভার ষ্ট্রাইপ

ওপেন সোর্স এবং ফ্লেক্সিবল একটি সিএমএস হল সিলভার ষ্ট্রাইপ, ওয়েব প্রজেক্ট করার মোটামুটি সব ধরণের টুলই এখানে পাওয়া যায়।

ওয়েব: http://www.silverstripe.org/

৫. ক্যুসি সিএমএস

সিম্পল একটি কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিষ্টেম হল ক্যুসি সিএমএস। এটি দিয়ে কোনরকম খরচ বাদেই আনলিমিটেড ইউজার, আনলিমিটেড চেঞ্জ, আনলিমিটেড পেজ এবং ওয়েবসাইট তৈরী করা যায়।

ওয়েব: http://www.cushycms.com/

৬. ফ্রগ সিএমএস:

কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিষ্টেমকে অনেক সিমপ্লিফাই করার জন্যে অনন্য অবদান রেখেছে ফ্রগ সিএমএস। সুরুচিপূর্ণ এবং পরিচ্ছন্ন ইউজার ইন্টারফেস, প্রতিটি পেজ এ ফ্লেক্সিবল টেমপ্লেটিং সুবিধা, সিম্পল ইউজার ম্যানেজমেন্ট এবং পারমিশন, দরকারী ফাইল ম্যানেজমেন্টের জন্য অসাধারণ একটি সিএমএস এটি।

ওয়েব: http://www.madebyfrog.com/

 

৭. মোডএক্স

ওপেন সোর্স পিএইচপি এপ্লিকেশন ফ্রেমওয়ার্ক, নিজের সাইটকে ঠিক যেমনটি করে সাজাতে চান ঠিক তেমন করেই সাজাতে পারবেন মোডএক্স দিয়ে। এর রয়েছে শক্তিশালী কমিউনিটি যার জন্যে অসংখ্য নজর কাড়া ডিজাইনের টেম্পলেট সচরাচরই পাওয়া যায়। মোড এক্স কে বলা হয় জিরো রেসট্রিকশন এবং ফাস্ট টু বিল্ড, মানে ১০০ ভাগ নিজের মত করে একে সাজাতে পারবেন একে।

ওয়েব: http://modxcms.com/

৮. টাইপোলাইট

টাইপোলাইট এমন একটি ওয়েব সিএমএস যা এজাক্স এবং ওয়েব 2.0 টেকনোলজি ব্যবহার করে তৈরী করা হয়েছে। এর রয়েছে লাইভ আপডেট সুবিধা এবং  মাল্টিল্যাঙ্গুয়েজ সাপোর্ট। যাদের মাল্টিপল ব্লগ রয়েছে তাদের জন্যে এটা বেশ সুবিধাজনক।

ওয়েব: http://www.typolight.org/

৯. এক্সপ্রেশন ইঞ্জিন

অনেক ধরনের সিএমএস পাওয়া যায় ইন্টারনেটে; কিন্তু যদি বৃহৎ পরিসরে তথ্যসমৃদ্ধ ওয়েবসাইট তৈরি করার পরিকল্পনা থাকে, তবে যেকোনো সিএমএসে নির্ভর না করে নিশ্চিন্তে এক্সপ্রেশন ইঞ্জিন  সিএমএস ব্যবহার করা যায়। তথ্যবহুল, ডেটা সমৃদ্ধ ওয়েবসাইট তৈরি করতে এই সিএমএস জুড়ি নেই।

কি নেই এর! সব আছে। তবে গতানুগতিক সিএমএস থেকে এটা কিছুটা ভিন্ন, প্রয়োজনমতো কাস্টমাইজ করে যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়। এতে রয়েছে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। তবে এটিকে ফ্রেমওয়ার্কের মতো করেও ব্যবহার করতে পারবেন। সনি, বিবিসি, নকিয়া, অ্যাপলের মতো কোম্পানির ওয়েবসাইটগুলো ইই সিএমএস ব্যবহার করে।

ওয়েব: http://expressionengine.com/

১০. কনক্রিট ফাইভ

শুধুমাত্র মার্কেটিং এর জন্যে এই সিএমএস টি তৈরী করা হয়েছে। খুবই শক্তিশালী এবং ওপেন সোর্স কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিষ্টেম।

ওয়েব: http://www.concrete5.org/

উল্লেখিত প্রতিটি কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিষ্টেমেরই রয়েছে আলাদা আলাদা ফিচার এবং বৈশিষ্ট্য। যেই সিএমএস নিয়েই কাজ করতে চান না কেন,  সফলতা পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই ধৈর্য্য ধরে নিয়মিত সময় দিতে হবে। তবেই একজন ডেভেলপার হিসেবে সফল ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারবেন। আপনার সফলতা কামনা করছি।

এছাড়া আর কোন সিএমএস আছে যেটাতে কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন?

কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না যেন।

আগ্রহ নিয়ে পড়ার জন্যে অসংখ্য ধন্যবাদ।

comments

Comments

  1. Anik says:

    Nice post…….

  2. Bangla Book says:

    মাত্র কয়েকটার নাম জানতাম!
    এখন আরিফ ভাইয়ের কল্যাণে বেশ কয়েকটা নতুন CMS এর নাম জানলাম!

  3. monna says:

    খুবই দরকারি পোস্ট।

  4. samir01 says:

    this is really a very important post i like that…

  5. rafidhossain says:

    Very impressive

  6. farhan.rashid says:

    Nice post 🙂

  7. banglamail says:

    আমার মনে হয় এই সব গুলির মধ্যে ওয়ার্ডপ্রেসই সেরা এবং ওয়ার্ডপ্রেস সবচেয়ে সহজ

মন্তব্য প্রদান করুন

*