সাধের থ্রিজি অবশেষে চালু!!!

লেখক : , প্রকাশকাল : 17 October, 2012

অনেকটা চুপিসারেই চালু হলো টেলিটকের পরীক্ষামূলক থ্রিজি সেবা। গত শুক্রবার প্রথম প্রহর থেকেই দ্রুতগতির তৃতীয় প্রজন্মের টেলিকমিউনিকেশন প্রযুক্তিসেবা পেতে শুরু করেছেন দেশীয় মোবাইল অপারেটর টেলিটকের গ্রাভিটি ক্লাব প্যাকেজভুক্ত মুঠোফোন ব্যবহারকারীরা। পরীক্ষামূলক চালু হওয়ায় মাঝেমধ্যেই নেটওয়ার্ক পরিবর্তন হয়ে কখনো জিপিআরএস, কখনো এজ বা এইচএসডিপিএ সাইন আসছে। তবে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত টেলিটক কর্তৃপক্ষ কোনো ঘোষণা দেয়নি। একইভাবে প্রতিষ্ঠানটির ওয়েব পেজেও এ বিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। টেলিটকের বিপণন বিভাগের প্রধান হাবিবুর রহমান জানান, তিনি বিষয়টি সম্পর্কে স্পষ্ট করে কিছু বলতে পারেননি। তিনি বলেন, বিষয়টি টেকনিক্যাল টিম বলতে পারবে।

এদিকে নেটওয়ার্ক নিয়ে কিছুটা বিড়ম্বনা থাকলেও শুক্রবার থেকেই ইন্টারনেটে দারুণ খোশ মেজাজে আছেন টেলিটকের গ্রাভিটি ক্লাবের থ্রিজি সেবাপ্রাপ্ত সদস্যরা। টেলিটকের গ্রাহক যাত্রাবাড়ীর মোহাম্মদ নুরুল হক জানান, ‘অবশেষে কাঙ্ক্ষিত থ্রিজি পেলাম। খুবই ভালো লাগছে। তবে ভারতের গ্রাহকরা যেভাবে এ সেবা উপভোগ করছেন তার স্বাদ এখনো পাইনি। আশা করছি আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হলে এ সমস্যা থাকবে না। পরীক্ষামূলকভাবে হওয়াতে আপাতত এতেই খুশি’। এ ছাড়া টেলিটকের কাস্টমার কেয়ার ইউনিটের প্রতি বিরক্তি প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘দেশের সবচেয়ে দ্রুতগতির টেলিকম প্রযুক্তিসেবা চালু করলেও মুঠোফোন থেকে কোনো সমস্যা নিয়ে তাদের ফোন করলে খুব একটা সাড়া পাওয়া যায় না। অন্যান্য বেসরকারি কাস্টমার কেয়ারের চেয়ে এদের সেবার মান অনেকটাই দুর্বল’। আগামী ১৪ অক্টোবর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে টেলিটকের থ্রিজি সেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত জুলাইতে ‘এ লড়াই আপনার জন্য নয়’ শিরোনামে একটি বিজ্ঞাপন দিয়ে চার লাখ গ্রাহকের জন্য থ্রিজি সেবা চালুর প্রস্তুতি শুরু করে টেলিটক। ভ্যালিড গ্রাহক নির্বাচনের জন্য তিন মাসের প্যাকেজ অফারের আওতায় গ্রাভিটি ক্লাব নামের একটি অফার দেয়। জানা গেছে, প্রথমে ঢাকা এবং পাশর্্ববর্তী এলাকায় এ সেবা দেবে তারা। সেক্ষেত্রে নারায়ণগঞ্জ -গাজীপুর এবং সাভার-আশুলিয়া এলাকায় প্রথম থেকেই এ সেবা পাওয়া যাবে। পাশাপাশি ডিসেম্বরের মধ্যেই চট্টগ্রামে এবং জানুয়ারিতে সিলেটে থ্রিজি সেবা দিতে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। তখন আট লাখ গ্রাহক হবে বলে দাবি করছে কোম্পানিটি। অবশ্য জানুয়ারিতে থ্রিজির নিলাম অনুষ্ঠিত হলে ফেব্রুয়ারি থেকে রাষ্ট্রায়ত্ত মুঠোফোন টেলিটকের এ সেবা পেতে শুরু করবে অন্যান্য অপারেটরের সেবা গ্রহিতারা। তাই নিজেদের অবস্থান ঠিক রাখতে আগেভাগেই থ্রিজির নিলামে প্রতি মেগাহার্টজ তরঙ্গের ভিত্তিমূল্য তিন কোটি থেকে কমিয়ে এক দশমিক আট কোটি নির্ধারণ করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। এছাড়া চীনের দুটি কোম্পানির কাছ থেকে ঋণ চুক্তিতে থ্রিজি প্রযুক্তি আমদানি করেছে টেলিটক। এ প্রযুক্তি চালু হলে দেশে তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

[খবরটি বাংলাদেশ প্রতিদিনে প্রকাশিত]

comments

মন্তব্য প্রদান করুন

*